বুধবার , সেপ্টেম্বর 19 2018

ঈদ স্পেশাল রেসিপি – গরুর মাংসের ভুনা তৈরি পদ্ধতি [ভিডিও]

আজ আমি আপনাদেরকে কুরবানির ঈদ স্পেশাল রেসিপি গরুর মাংসের ভুনা তৈরি করে দেখাবো। তাহলে চলুন প্রথমে গরুর মাংসের ভুনা করতে কি কি উপকরন লাগে সেটা দেখে নেই।

==== কি কি উপকরণ দরকার ====

  • আমি এখানে ১ কেজির মত গরুর মাংস আগে থেকেই পরিষ্কার করে নিয়েছি।
  • আছে ২ কাপের মত পেয়াজ কুচি,
  • ৪ টি আস্ত কাঁচা মরিচ,
  • ৪ টি এলাচ,
  • ২/৩ টা দারচিনির টুকরা,
  • একটা তেজ পাতা
  • আর ১ টা বড় সাইজের আলু জাস্ট এভাবে কিউব করে কাঁটা। (আমি এখানে পানির মধ্যে রেখেছি যাতে আলু গুলো কালো হয়ে না যায়।)
  • এখানে আছে মরিচ গুড়ো ১ টেবিল চামুচ,
  • হলুদ হাফ টেবিল চামুচ,
  • গরম মসলার গুড়া ১ টেবিল চামুচ,
  • লবন স্বাদ মত,
  • আর টক দই। (টক দইটা এখানে আমি খুবি মিহি করে জাস্ট চামুচ দিয়ে ফ্যাটে নিয়েছি।)
  • ধনিয়া গুড়া হাফ টেবিল চামুচ,
  • জিরা গুড়া হাফ টেবিল চামুচ,
  • আদা বাটা হাফ টেবিল চামুচ এবং
  • রসুন ১ টেবিল চামুচ।
আমার এই রেসিপিটির ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

===== রন্ধন প্রণালী =====

এখন আমি প্যানে পরিমান মত তেল দিয়ে দিব, খুব বেশি একটা তেল use করবোনা, তেল গরম হয়ে আসছে এখন আমি এর মধ্যে পেয়াজ কুচিটা দিয়ে দিব, হাল্কা ব্রাউন কালার না আসা পর্যন্ত একটু ভেজে নিব। দেখতে পাচ্ছেন আমার পেয়াজের কালারটা হাল্কা ব্রাউন চলে আসছে।

এখন আমি এর মধ্যে একটা তেজ পাতা ছিরে দিয়ে দিব। দারচিনি, এলাচ, লং দিয়ে দিচ্ছি। আবার একটু নেড়ে দিব। সামান্য একটু পানি add করবো। এখন আমি এর মধ্যে আদা, রসুন, জিরা গুড়া ও ধনিয়া গুড়া দিয়ে দিব।

হলুদ, মরিচ গুড়া, ঝালটা অবশ্যই আপানাদের পছন্দ মত দিবেন। কারন অনেকে ঝাল বেশি পছন্দ করেনা বা কম পছন্দ করেন।

আমি এগুলোকে সুন্দর ভাবে নেড়ে নিব। খুব সামান্য একটু লবন দিয়ে দিব। খেয়াল রাখবেন যাতে মসলা গুলো পুড়ে না যায়। আমি আবারো সামান্য একটু পানি দিয়ে দিচ্ছি। ৩/৪ মিনিট ধরে একটু কষে নিব।

পেয়াজ এর মসলা গুলো সুন্দর ভাবে কষে গিয়েছে। দেখতে পাচ্ছেন সুন্দর একটা কালার চলে আসছে এবং তেলটাও উপরে চলে আসছে, এখন আমি এই মসলার মধ্যে গরুর মাংসটা দিয়ে দিব।

আমি এখানে গরুর শিনার মাংস ইউজ করেছি। আপনারা চাইলে শিনা বাদেও গরুর মাংস ইউজ করতে পারেন।

ভালো ভাবে নেড়ে দিব। আমার মাখানো প্রায় শেষ। এখন আমি এর মধ্যে টক দইটা দিয়ে দিচ্ছি। আপনারা চাইলে টক দই নাও দিতে পারেন। কারন অনেকেই গুরু মাংসের ভুনার মধ্যে টক দইটা পছন্দ করেনা। ভালো ভাবে নেড়ে দিব। জাস্ট ৩/৪ মিনিটের জন্য ঢেকে দিব। ফিরে আসছি ৩/৪ মিনিট পরেই। …

আমার ৩ মিনিট হয়ে গেছে। টক দই ইউজ করলে আসলে গরুর মাংসের ভুনাটার স্বাদ বেড়ে যায়। সেজন্য আমি ইউজ করেছি। এখন আমি এখানে লবন দিয়ে দিব। ভালো ভাবে নেড়ে দিচ্ছি। আমি মাংসটার আগে থেকেই পানি ছেড়ে রেখে ছিলাম। এখন আমি এর মধ্যে সামান্য একটু পানি এড করবো।

প্রায় ৩৫/৪০ মিনিটের মত এটা আমি ঢেকে রান্না করবো। আপনারা এর মধ্যেই অবশ্যই ২/৩ বার নেড়ে দিবেন। আর আচটা অবশ্যই মিডিয়ামে রাখবেন। খুব বেশি আচে রাখলে মাংসটা তারাতারি সিদ্ধ হয়ে যাবে। তখন খেতে টেস্টি লাগবে না। ফিরে আসছি ৪০ মিনিট পরেই।

এখন আমি ঢাকনাটা উঠায় ফেলছি। আমি এর মধ্যে ২ বার নেড়ে দিয়েছি। দেখতে পাচ্ছেন আমরা মাংসটা খুবিই সুন্দর ভাবে কষানো হয়ে গেছে। কালারটা দেখেন কত সুন্দর একটা কালার চলে আসছে। এখন আমি এর মধ্যে আলু গুলো দিয়ে দিব।

আমি মাংসে আলু খেতে পছন্দ করি, তাই আলু ইউজ করেছি। আপনারা চাইলে আলু নাও ইউজ করতে পারেন। আবার একটু নেড়ে দিচ্ছি। এখন আমি আস্ত কাচা মরিচ গুলো দিয়ে দিচ্ছি। এখন আরও একটু পানি অ্যাড করবো। আলুটা সিদ্ধ হওয়ার জন্য আর মাংসটাও যেন আরও ভালো ভাবে সিদ্ধ হয়ে যায়। ভালোভাবে নেড়ে ঢাকনাটা দিয়ে দিব। এর মধ্যে আপনারা ১/২ বার নেড়ে দিবেন। এবার ফিরে আসছি ২০ মিনিট পরেই।

আমার ২০ মিনিট হয়ে গেছে। এখন আমি ঢাকনাটা উঠায় ফেলবো। আমি এর মধ্যে ২ বার নেড়ে দিয়েছি। আমি একটু ঝোল ঝোল পছন্দ করি। তাই একটু ঝোলটা বেশি রেখেছি। আপনারা যদি এর চেয়েও ঝোলটা কম রাখতে চান তাহলে অবশ্যই পানিটা আরেকটু শুকায় ফেলবেন।

আরেকটা কথা এই ২০ মিনিটের মধ্যে আপনারা অবশ্যই মাংস ও আলু সিদ্ধ হয়েছে কিনা সেটা চেক করে নিবেন। এখন আমি এর মধ্যে দিয়ে দিচ্ছি গরম মসলার গুড়া। যেহেতু আমার মাংস সিদ্ধ হয়ে গেছে, সেজন্য আমি আর ঢেকে দিবনা। আমি এখন এটাকে ৪ মিনিট ধরে জাস্ট ঢাকনা ছাড়া রান্না করে নিব।

৪ মিনিট হয়ে গেছে। দেখতে পাচ্ছেন তেল গুলো উপরে উঠে আসছে আর ঝোলটাও অনেক সুন্দর হয়ে গেছে। এখন আমি চুলাটা বন্ধ করে দিচ্ছি। So, আমার রান্নাটা কমপ্লিট। এখন আমি এটাকে সুন্দর একটা ডিসে পরিবেশন করবো।

তো তৈরি হয়ে গেলো মজাদার গরুর মাংসের ভুনা। গরুর মাংসের ভুনা আমারতো পোলায়ের সঙ্গে খেতে খুবিই মজা লাগে। আপনারা বাসায় অবশ্যই ট্রাই করে আমাকে জানাবেন। আজ এ পর্যন্তই। ঈদের আগাম শুভেচ্ছা রইল।

আমার কথা: আমি মুন্নি, আপনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি – মুন্নি’স কিচেন ভিজিট করার জন্য (নিজে কিছু করার ইচ্ছে থেকেই এর যাত্রা শুরু)। যদি আমার রেসিপি ভালোলেগে থাকে, তাহলে অবশ্যই আমার ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করবেন (অনেক খুশী হবো), আর আমার জন্য দোয়া করবেন।

আমার ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে এখানে ক্লিক করুন।

Check Also

মজাদার মাশরুম ফ্রাই

ঘরে বসে ঝটপট তৈরি করে ফেলুন দারুন স্বাদের স্বাস্থ্যকর মাশরুম ফ্রাই

আমরা রোজার মাসে স্বাস্থ্যকর খাবার বেশি খেয়ে থাকি। তাই সেহরিতে স্বাস্থ্যকর খাবার হিসেবে তৈরি করতে …

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।